,

লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জে শ্বশুর বাড়ি থেকে যুবকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক :


লক্ষ্মীপুরে শ্বশুর বাড়ি থেকে কাজী ওমর ফারুক নামের এক যুবকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার রাত ৯টার দিকে চন্দ্রগঞ্জ থানার পূর্ব রাজাপুর এলাকার মোল্লাবাড়ির আব্দুল মন্নানের নতুন বাড়ি থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে ময়নাতদন্তের জন্য নিহতের মরদেহ লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। স্বজনদের দাবি পারিবারিক কলহের জের ধরে তাকে হত্যা করা হতে পারে।

পুলিশ ও স্বজনরা জানায়, প্রায় আড়াই বছর আগে চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়নের দেওপাড়া কাজী বাড়ির আব্দুল লতিফের পুত্র কাজী ওমর ফারুকের সাথে একই ইউনিয়নের পূর্ব রাজাপুর গ্রামের মোল্লাবাড়ির আব্দুল মন্নানের কন্যা ডলি আক্তারের বিয়ে হয়। তাদের ৭ মাস বয়সের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ চলে আসছিল। গত কিছুদিন পূর্বে ঝগড়া করে ডলি বাবার বাড়িতে চলে আসে।

সোমবার বেলা ৩টার দিকে তাকে নেওয়ার জন্য ফারুক শ্বশুর বাড়িতে আসে। এরপর রাত ৯টার দিকে ওই বাড়ির ভিতর থেকে কক্ষের দরজা বন্ধ থাকায় দেয়াল ভেঙ্গে তার গলাকাটা রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় মেঝে থেকে একটি রক্তমাখা দা জব্দ করা হয়। তবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা এ বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত জানাতে পারেনি পুলিশ। তারা একে রহস্যজনক বলে মনে করছেন।

চন্দ্রগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) জাফর আহাম্মদ মুঠোফোনে জানিয়েছেন, এটি হত্যা না আত্মহত্যা ময়নাতদন্ত রিপোর্ট এবং তদন্ত সাপেক্ষে বলা যাবে। তিনি বলেন, যেহেতু ভিকটিমের ঘরটি ভিতর থেকে আটকানো ছিল। আমরা পরে দরজা ভাঙ্গতে না পেরে দেয়াল ভেঙ্গে ভিতর থেকে লাশ উদ্ধার করেছি, সেহেতু হত্যার রহস্য এখনো বলা যাচ্ছেনা। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এখনও থানায় মামলা বা কাউকে আটক করা হয়নি বলেও জানিয়েছেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।

     এই বিভাগের আরও সংবাদ

আর্কাইভ

}